মানিকগঞ্জে পুরাতন সিলেবাসে পরীক্ষা দিল ৬০০ শিক্ষার্থী ।

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক,
প্রকাশিত: ১১:৫৪ পিএম, ২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

---

মানিকগঞ্জের দৌলতপুর পি.এস. মডেল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে এস.এস.সি বহুনির্বাচনী পরীক্ষা বাংলা প্রথম পত্র ২০১৮ ও ১০১৮ সালের সিলেবাস অনুযায়ী পুড়াতন নৈব্যতিক প্রশ্নে পরীক্ষা দিতে হলো প্রায় ছয় শতাধিক শিক্ষার্থীর । ফলে ছয় শতাধিক শিক্ষার্থীর পরীক্ষার ফলফল নিয়ে ভবিষৎ অনিশ্চিত হয়ে গেল ।

পুরাতন সিলেবাস অনুযায়ী প্রশ্নপত্র হওয়ায় ওই পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা খারাপ হয়েছে বলে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেছেন।
শনিবার সকালে দৌলতপুর উপজেলায় পিএস সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে এই ঘটনা ঘটে।
বেশ কয়েকজন পরীক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, ৩০ নাম্বারের ওই পরীক্ষায় পুরাতন সিলেবাসে প্রশ্ন হওয়ার বিষয়টি কেন্দ্রের সচিব, হলসুপার ও শিক্ষকদের জানানো হলে তারা বিষয়টি ধামা চাপা দেওয়ার চেষ্টা করে বলেন, যে প্রশ্ন পাওয়া গেছে ওই প্রশ্নেই পরীক্ষা দিতে হবে।
পরীক্ষার্থীরা শিক্ষাপ্রতিদিনকে বলেন, পুরাতন সিলেবাস অনুযায়ী প্রশ্ন হওয়ায় তাদের ওই কেন্দ্রের সকল পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষাই খারাপ হয়েছে। শিক্ষকরা প্রশ্ন না দেখেই তা শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করেছে বলে তারা অভিযোগ করেন।
সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, উপজেলা একটি কেন্দ্র তার মধ্যে দৌলতপুর পি.এস. সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়,দৌলতপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, সরকারী মতিলাল ডিগ্রী কলেজ মোট তিনটি ভেন্যুতে প্রায় ২২০০ পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এদের মধ্যে পি.এস সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট পরীক্ষার্থী ৬০০ জন। পরীক্ষার পরপরই ওই কেন্দ্রের শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে। পরে ওই কেন্দ্রের সচিব মিজানুর রহমান ও হলসুপার মজিবর রহমান উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কথা বলে শিক্ষার্থীদের শান্ত করেন।
---

এবিষয়ে কেন্দ্র সচিব মো: মিজানুর রহমান শিক্ষাপ্রতিদিনকে বলেন, বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। কিন্তু উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ এই প্রশ্নেই পরীক্ষার ফলাফল প্রদান করবে বলে জানিয়েছেন।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাবরিনা শারমিন শিক্ষাপ্রতিদিন কে জানান, বোর্ডের ডেপুটি কোন্টলারের সাথে কথা হয়েছে । ডেপুটি কোন্টলার বলেছেন,ছাত্র/ছাত্রীদের শান্ত থাকতে বলেন। তারা যে সিলেবাসে পরীক্ষা দিয়েছে ঐ প্রশ্নের উত্তর সঠিক হলে তাদের পূর্ণমান নম্বর দেওয়া হবে । স্থানীয় ভাবে প্রশ্ন বিতরনের সময় দায়িত্বের অবহেলা থাকলে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে ।
শিক্ষাপ্রতিদিন/প্রতিবেদক/এ.আর

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)